সর্বশেষ আপডেট :May 27, 2020
Ovinews24

অনন্যা’র আরাধনায় কিংবদন্তী শিল্পীরা

May 24, 2020

অভি মঈনুদ্দীন : এই অনন্যা সেই অনন্যা যে কী না সেই ছোট্টবেলাতেই স্টেজ শো’তে গান গেয়ে শ্রোতা দর্শককে মুগ্ধ করেছিলেন। এই অনন্যা সেই অনন্যা যে কী না ২০০৯’র ক্ষুদে গানরাজ’এ শীর্ষ দশে ছিলেন। আর এই অনন্যা এখন পড়ছেন রাজধানীর জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে সঙ্গীত বিভাগে ক্ল্যাসিক্যাল মিউজিক বিষয়ে। বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেক নন্দিত শিক্ষক দেশের বিশিষ্ট রবীন্দ্র সঙ্গীতশিল্পী অণিমা রায়ের ভীষণ স্নেহধন্য এই অনন্যাকে ভীষণ আদর করেন বিশ্ববিদ্যালয়েরই আরেক শুধ সুরের সঙ্গীতশিল্পী রাকিবা ইসলাম ঐশী। অনন্যা ও ঐশী একই বিভাগের শিক্ষার্থী। ঐশী বড়, অনন্যা ছোট। বিশ^বিদ্যালয়ের পরিমণ্ডলে ঐশীর যেমন সুনাম রয়েছে, সুনাম রয়েছে অনন্যারও। বিশ্ববিদ্যালয়ও গর্বিত এমন দু’জন শিক্ষার্থীকে নিয়ে। অনন্যা বিশ্ববিদ্যালয়ের বন্ধুদের ভালোবাসায় ধন্য। তবে এই অনন্যার স্বপ্ন দেশের জীবন্ত কিংবদন্তী সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লা, সাবিনা ইয়াসমিন, কনকচাঁপার মতো সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে নিজেকে গড়ে তোলা। তাই সুরের সাধনায়, আরাধনায় অনন্যা এই প্রিয় তিনশিল্পীর ভাবনাই মাথায় রেখেই আগামীর পথে গানে গানে আরাধনা করে এগিয়ে চলেছেন। অনন্যা বলেন,‘ পরিবারের সর্বাত্বক সহযোগিতায় আমি গানের ভুবনে নিজেকে একটু একটু করে প্রতিষ্ঠিত করে তোলার চেষ্টা করছি। সত্যি বলতে কী পরিবার পাশে না থাকলে এতোদূর আসা কোনভাবেই আমার সম্ভব হতোনা। আমার পরম শ্রদ্ধার তিন শিল্পী শ্রদ্ধেয় রুনা লায়লা ম্যাডাম, সাবিনা ইয়াসমিন ম্যাডাম ও কনকচাঁপা মা’মনির বর্ণাঢ্য সঙ্গীত জীবন আমাকে মুগ্ধ করে প্রতিনিয়ত। আগামীর পথে চলতে গিয়ে সঙ্গীতে তাদের সাফল্য ভাবনায় রেখে আমার সাধনা করে যাই আমার মতো। জানি এই এক জীবনে তাদের মতো হতে পারা কোনভাবেই সম্ভব না। কিন্তু তাদেরকে অনুসরণ করে আগামীর পথে এগিয়ে যেতে চাই। গান আমার অনেক আরাধনার অনেক সাধনার। একজন সত্যিকারের শুদ্ধ সুরের সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে চাই। সবার কাছে আশীবার্দ কামনা করি সবসময়। আর জীবন চলার পথে যে যখন যেভাবে পাশে দাঁড়িয়েছেন তাদের প্রতি রইলো শ্রদ্ধা, ভালোবাসা।’ অনন্যার গানে হাতেখড়ি তার মা কণা আচার্য্যর ওস্তাদ শীতল ঘোষালের কাছে। পরবর্তীতে আরো অনেকের কাছে নানান সময়ে তালিম নিয়েছেন। উপমহাদেশের প্রখ্যাত সঙ্গীত ব্যক্তিত্ব পণ্ডিত অজয় চক্রবর্তীও কাছে নিয়মিত তালিম নেন তিনি। সিনেমাতে অনন্যা প্রথম গান করেন গাজী মাজহারুল আনোয়ারের লেখা রিজিয়া পারভীনের সঙ্গে একটি গানে। অরুণ চৌধুরী পরিচালিত ‘মায়াবতী’ সিনেমায় ফরিদ আহমেদ’র সুর সঙ্গীতে পাঁচটি গানে কন্ঠ দিয়েছিলেন তিনি। যারমধ্যে ‘নারী পুরুষ’ গানটি একটি মৌলিক গান। ইচ্ছেঘুড়ি’ নাটকে রবিউল ইসলাম জীবনের কথায় ও শাওন গানওয়ালার সুর সঙ্গীতে শাওনেরই সঙ্গে ‘কেউ একজন’ গান গেয়ে প্রশংসিত হয়েছেন অনন্যা। অনন্যা’র এই প্রজন্মের প্রিয় শিল্পীদের মধ্যে রয়েছেন ইউসুফ আহমেদ খান, অপু আমান, লুইপা, নন্দিতা, রাকিবা ইসলাম ঐশী। লকডাউনের এই দিনগুলোতে অনন্যা ঘরে বসেই নিয়মিত গানে তালিম চালিয়ে যাচ্ছেন। মাকে রান্না বান্নার কাজেও করছেন সহযোগিতা। করোনার ক্রান্তিকাল কেটে গেলে জামাল রেজার কথায় ও সাব্বির জামানের সুর সঙ্গীতে নতুন একটি গান প্রকাশ করবেন অনন্যা।
ছবি : আলিফ হোসেন রিফাত

Leave a Reply

এটাও পছন্দ করতে পারেন

দুলাভাই দুলাভাই’খ্যাত রেশমা সুইটির গানের গল্প

চাঁদ রাতে মমতাজের লাইভ শো ‘হাতে লয়ে প্রেমের পুতুল’

মোল্লা জালালের কথা, সুরে ঈদের গানে ইবরার টিপু, সাব্বির ও বিন্দুকনা

মন ছুঁয়ে যাওয়া শিরোনামে নতুন নতুন গানে স্মরণ

উপমহাদেশে প্রথম নজরুলের গানে একই পরিবারের তিন সদস্য

আজাদ রহমানকে উৎসর্গ করে অধরার উদ্যোগে ‘এইতো সেই পৃথিবী’

Copy link
Powered by Social Snap