সর্বশেষ আপডেট :January 18, 2020
Ovinews24

কষ্ট নেই, আছে আক্ষেপ…

September 22, 2019

বিনোদন প্রতিবেদক : চিত্রনায়িকা অরুনা বিশ্বাস, বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের একজন তুখোড় অভিনেত্রী। একশো’রও বেশি সিনেমায় যেমন অভিনয় করেছেন নায়িকা হিসেবে, ঠিক তেমনি দুই শতাধিক সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি ভার্সেটাইল একজন অভিনেত্রী হিসেবে। বর্তমানে সবচেয়ে বেশি ব্যস্ততা তার সেন্সর বোর্ডের সদস্য হিসেবে কাজ করা নিয়ে। তারপরও তিনি চেষ্টা করেন সময় করে তার পেশাগত কাজ অভিনয়ে ব্যস্ত থাকতে। সেই ধারাবাহিকতায় অরুনা বিশ্বাস বর্তমানে দীপ্ত টিভির প্রচার চলতি ধারাবাহিক নাটক ‘ভালোবাসার আলো আঁধার’ নাটকে অভিনয় নিয়ে বেশ ব্যস্ত সময় পার করছেন। ধারাবাহিকটির গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। অরুনা বিশ্বাস জানান নাটকটি নির্মাণ করছেন গোলাম সোহরাব দোদুল। এদিকে এখন পর্যন্ত তিন শতাধিক সিনেমায় অভিনয় করলেও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হবার সৌভাগ্য হয়নি অরুনা বিশ^াসের। অবশ্য এ নিয়ে তার কোন দু:খবোধ নেই। নেই কোন কষ্ট। তবে আক্ষেপ আছে তার। কারণ জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাবার মতো চরিত্রে তিনি অভিনয় করেছেন, এটা তার আত্নবিশ্বাস। অনেক অনেক সিনেমার নাম বলার প্রয়োজন নেই। খান আতাউর রহমানের ‘পরশ পাথর’, শিবলী সাদিকের ‘সম্মান’, বাবরের ‘দয়াবান’, চাষী নজরুল ইসলামের ‘হাঙ্গর নদী গ্রেনেড’, এমএম সরকারের ‘আত্নসম্মান’ এবং সুভাষ দত্তের ‘আবদার’, এসব সিনেমাতে অরুনা বিশ্বাস যে অনবদ্য অভিনয় করেছিলেন তাতে সেই সময়কালে অনেকেই ধরে নিয়েছিলেন তার অর্জনের তালিকায় জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার হয়তো যুক্ত হবে। কিন্তু বারবার আশাহত হয়েছেন অরুনা, আশাহত হয়েছেন তার ভক্ত দর্শক। অবশ্য অনুনয় বিনয় করে সম্পর্কের খাতিরে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে কোনরকম আগ্রহ ছিলো না তার কখনো। যোগ্যতার নিরিখেই তিনি পুরস্কার প্রাপ্তিতে বিশ্বাসী। আর তাই দর্শকের ভালোবাসাকেই তিনি সবচেয়ে বেশি মূল দিয়ে আসছেন সবসময়। এখনো দর্শক তাকে যে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা প্রদর্শন করেন সেটাই তার জীবনের অনেক বড় প্রাপ্তি হিসেবে বিবেচ্য তার কাছে। অরুনা বিশ্বাস বলেন,‘ আমি বিশ্বাস করি বাংলাদেশের সিনেমাপ্রেমী দর্শক আমাকে ভালোবাসেন। আমি বিশ্বাস করি , আস্থা রাখি একদিন হয়তো সময় হবে, একদিন হয়তো সৎ পথে থাকার বিচার হবে, একদিন হয়তো অভিনয়ের স্বীকৃতি মিলবে জাতীয় পর্যায়ে। হয়তো সেদিন এই স্বীকৃতির প্রতি কোন আগ্রহ বা ভালোবাসা থাকবেনা। কারণ যখন মানুষের ভালোবাসার প্রয়োজন হয়, যখন মানুষের স্বীকৃতির আকাঙ্খা থাকে তখন যদি ন্যায় বিচার না হয়, সময় পেরিয়ে গিয়ে তার প্রতি আশা রাখা অযথাই মনে হয়।’
ছবি : মোহসীন আহমেদ কাওছার

Leave a Reply

এটাও পছন্দ করতে পারেন

মায়ের সম্মাননা প্রাপ্তিতে গর্বিত মেয়ে

‘কেশ কন্যা’ শাহনূর

‘ইন্দুবালা’য় গল্পের নায়ক আশিক চৌধুরী

আলোকিত নারী’ সম্মাননায় ভূষিত অপু বিশ্বাস

শ্রেষ্ঠ করদাতা’র পুরস্কারে ভূষিত ববিতা, মমতাজ ও তাহসান

সেই নির্মাতার হাত ধরে আবারো তমা, নতুন স্বপ্নের শুরু

Copy link
Powered by Social Snap