সর্বশেষ আপডেট :সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৯
Ovinews24

জন্মদিনে ভালোবাসায় সিক্ত কনকচাঁপা

সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯

বিনোদন প্রতিবেদক : আজ বাংলাদেশের নন্দিত সঙ্গীতশিল্পী কনকচাঁপার জন্মদিন। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত গুনী এই সঙ্গীতশিল্পীর জন্মদিনে দেশ বিদেশের অনেকেই তাকে সরাসরি কিংবা ফেসবুকে তাদের ভালোবাসা প্রকাশের মধ্যদিয়ে কনকচাঁপাকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন। সবার ভালোবাসায় সিক্ত হচ্ছেন কনকচাঁপা। পারস্পরিক শ্রদ্ধা, ভালোবাসা, বোঝাপড়া আর ধৈর্য্যের মধ্যদিয়ে সংসার জীবন হয়ে উঠে সুখের আনন্দের, যেন তারই প্রমাণ মিলে মইনুল ইসলাম খান ও কনকচাঁপার সংসারে। রাজধানী শহরের যখন যেখানে কনকচাঁপাকে চোখে পড়েছে, সেখানেই ছায়ার মতো পাশে দেখেছি তারই স্বামী বরেণ্য সুরকার সঙ্গীত পরিচালক মইনুল ইসলাম খানকে। স্ত্রীর জন্য নিবেদিত এই মানুষটি নিজের ক্যারিয়ারের কথা চিন্তা না করে নিজের অর্ধাঙ্গিনীর সাফল্য নিয়ে, নিজের স্ত্রীর সর্বোচ্চ ভালোটি নিয়ে ভেবেছেন তিনি। আর তাই কনক চাঁপার কাছে বাবা মায়ের একজন মইনুল’ই হচ্ছেন তার পৃথিবী। এই পৃথিবীতেই তিনি তার দুই সন্তান, দই নাতি নাতনীকে নিয়ে সুখের স্বর্গ গড়েছেন। ওপারে যাবার আগেও যে এপারে স্বর্গ রচনা করা যায় কনকচাঁপা আর মইনুল যেন তারই প্রমাণ দিয়ে চলেছেন বিগত তিন দশকেরও বেশি সংসার জীবনে। একই পথে চলতে চলতে দু’জনের মন যে কখন একই সুঁতোয় বাধা পড়েছিলো তা নিজেরাও জানতেন না। তবে একে অন্যের উপর যে নির্ভর হয়ে পড়েছিলেন তা দু’জন অকপটে স্বীকার করেন আজো। তাই সেই শুরু থেকে এখন পর্যন্ত কনকচাঁপার জীবনের অঘোষিত নির্দেশক হচ্ছেন মইনুল ইসলাম খান। আর সেই নির্দেশকের কথার বাইরে ঘর থেকে এক পাও কখনো বের হবার ভাবনাও মাথায় আনেননি কনকচাঁপা। বাংলাদেশের শ্রোতা দর্শকের কাছে কনকচাঁপা এক আরাধ্য সঙ্গীতশিল্পীর নাম। অনেকেই মনে মনে তার মতো হবার বাসনা করেন, নিজের মনের মতো স্বপ্ন বুনেন। কেউ কারো মতো হতে পারেন না।

স্বামীর সঙ্গে কনকচাঁপা

কিন্তু কেউ কেউ কারো মতো হবার চেষ্টা করতে গিয়ে নিজের আলাদা সত্ত্বা তৈরী করেন। কনকচাঁপা সেই জন, যাকে অনুসরণ করে অনেকেই আগামীর পথে এগিয়ে চলার অনুপ্রেরণা পান। অথচ সেই কনক চাঁপার অনুপ্রেরণা তার স্বামী মইনুল ইসলাম খান। নিজের জীবনে এই মহান মানুষটির ভূমিকা প্রসঙ্গে কনক চাঁপা বলেন,‘ স্বামীর ভালোবাসা, প্রেম একটি সুন্দর সংসার গড়ে তোলার জন্য খুব প্রয়োজন। একটি সুখী দম্পতি তখনই সফল যখন তারা নিজে সুখে থেকে তাদের চারপাশ ভালো রাখে। আমাদের দু’জনের মধ্যেই সেই চেষ্টাটা আছে। আছে আমাদের পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ, ভালোবাসা, বিশ্বাস আর ধৈর্য্য। আমরা দু’জনই একই পেশার মানুষ হলেও আমাদের মধ্যে নেই কোন ব্যক্তিত্বের দ্বন্দ্ব। আমার জন্য কখনো তিনি এক পা এগিয়ে এলে, আমি তারচেয়ে বেশি পা পেলে হাতে হাত রেখে এগিয়ে গিয়েছি। আমার জীবনে তাকে পেয়ে আমি ৯৯.৯৯ ভাগ সুখী। .০১ ভাগ কেন বাকী, সেটাও বলি। আমার প্রিয় ফুল বেলী। কিন্তু তিনি আমাকে সেটা প্রায়ই ভুলে যান। চাইলেই তিনি নানানভাবে মনে রেখে আমার জন্য বেলী ফুল নিয়ে আসতে পারেন। কিন্তু সেই নানান রকমে মনে রাখার চেষ্টাটা করেন না। নিয়মিতই তা ভুলে যান। এই যে তার সহজ সরল স্বাভাবিক ভুলে যাওয়া, ফুল আনার জন্য চাতুরী না করা, এটাই আমাকে মুগ্ধ করে। তাই পরিশেষে আমাকে বলতেই হয় তাকে পেয়ে আমি শতভাগ সুখী।’ কনকচাঁপা আরো বলেন, ‘স্টেজ শোর সময় অনেকেই স্টেজ কে ছুঁয়ে স্টেজ এ উঠেন। অবশ্যই সেটা যার যার ভালোলাগার বিষয়। আমিও স্টেজ এ উঠার আগে স্টেজ’র প্রতি সম্মান নিইে স্টেজ-এ উঠি। কিন্তু আমি সবসময়ই আমার স্বামীকে সালাম করে স্টেজ-এ উঠি। কারণ আমার কাছে তিনিই আমার সবচেয়ে বড় শ্রদ্ধার জায়গা।’ কনকচাঁপা প্রসঙ্গে মইনুল ইসলাম খান বলেন,‘কনক আমার জীবনে শতভাগ পরিপূর্ণতা এনে দিয়েছে। দু’জন একই পেশার মানুষ হয়ে ৩৫টি বছর সুখে শান্তিতে একই ছাদের নীচে বসবাস করা কোন সহজ কথা নয়। আমি আমার সঙ্গীত জীবনে অনেক সেক্রিফাইস করেছি। আমার যখন আমার কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকার কথা, তখন তার সাফল্যের জন্য সময় দিয়েছি আমি। আমি চাইলেই নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত থাকতে পারতাম। কিন্তু আমি নিজের কথা না ভেবে শুধই কনকের কথা ভেবেছি। কারণ সে আমার অর্ধাঙ্গিনী। তার সাফল্যই আমার সাফল্য। কনক জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হয়েছে বেশ কয়েকবার। তা আমার জন্য অনেক আনন্দ বয়ে নিয়ে এসেছে। আমি শিল্পী কনকচাঁপা এবং ব্যক্তি কনকচাঁপাকে অনেক সম্মান করি। কারণ মানুষকে গানের মাধ্যমে আনন্দ দেবার পাশাপাশি নিজে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ে, ক্বোরআন পড়ে, সামাজিক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত, একটি ইস্কুল পরিচালনা করে, দুঃখী মানুষের জন্য ভাবনা থাকে। আমার সামনে যখন কনকের কেউ প্রশংসা করে তখন গর্বে আমার বুক ভরে উঠে। আমার স্ত্রীর সাফল্যই আমার সাফল্য।’ মইনুল কনক দম্পতির এক ছেলে এক মেয়ে। ছেলে ফাইজুল ইসলাম খান মাসুক ও মেয়ে ফারিয়া ইসলাম খান।
ছবি- মোহসীন আহমেদ কাওছার

Leave a Reply

এটাও পছন্দ করতে পারেন

নাটকে ব্যস্ত হতে চান ৩৫০ মিউজিক ভিডিও’র নির্মাতা ইমন

গানে গানে মুগ্ধতা ছড়ালেন সন্দীপন-নন্দিতা

ঐশী’র…‘আমার লাউয়ের পিছে লাগছে বৈরাগী’

বাংলা’য় সালমানকে নিয়ে দিঠি-ইউসুফ

সালমান শাহ’র জন্মদিনে, পরেরদিনে…

টানা তিনদিন

Copy link
Powered by Social Snap