সর্বশেষ আপডেট :December 6, 2019
Ovinews24

জন্মদিনে লাল গালিচা সংবর্ধনা দেয়া হবে সাবিনা ইয়াসমিন’কে

September 3, 2019

অভি মঈনুদ্দীন : উপমহাদেশের প্রখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী সাবিনা ইয়াসমিনের জন্মদিন ৪ সেপ্টেম্বর। বাংলাদেশের সঙ্গীতাঙ্গনের উজ্জ্বল নক্ষত্র তিনি, জীবন্ত এই কিংবদন্তী কন্ঠশিল্পী এ দেশের গর্ব। শুধু দেশের গানেই তার যে বিরাট অবদান, তা দিয়েই তিনি এই বাংলার বুকে বেঁচে থাকবেন শতশত বছর। বছরজুড়ে বিভিন্ন সময়ে তার গাওয়া দেশের গান আমাদের পুলকিত করে, অনুপ্রাণিত করে, আন্দোলিত করে। আর দেশের বিভিন্ন জাতীয় দিবসে তার গাওয়া দেশের গানই যেন আগামীদিনে নতুন করে পথ চলার সাহস যুগায়। দেশের গান ছাড়াও চলচ্চিত্রে হাজার হাজার গান গেয়েছেন তিনি। আর এমনি করেই গানে গানে সাবিনা ইয়াসমিন হয়ে উঠেছেন এদেশের তথা বাংলা ভাষাভাষীর অতি প্রিয় একজন শিল্পীতে-একজন জীবন্ত কিংবদন্তীতে। গুণী এই সঙ্গীতশিল্পীর জন্মদিন ৪ সেপ্টেম্বর। গেলো বছরের জন্মদিনে তিনি সিঙ্গাপুরে ছিলেন। কিন্তু এবারের জন্মদিনে তিনি ঢাকায় আছেন। চ্যানেল আই’র প্রযোজক অনন্যা রুমা জানান আগামীকালের ‘তারকা কথন’ সাজানো হয়েছে সাবিনা ইয়াসমিনের জন্মদিনকে ঘিরে। উপস্থাপনা করবেন চিরসবুজ অভিনেতা আফজাল হোসেন এবং সঙ্গে থাকবেন সেরা কন্ঠের দশজন শিল্পী। জন্মদিন প্রসঙ্গে সাবিনা ইয়াসমিন বলেন, ‘জন্মদিন এলেই আব্বা আম্মা এবং আমার বোনদের খুউব মিস করি। কিন্তু তারপর সবার ভালোবাসা পেয়ে আমি সে কষ্ট ভুলে থাকার চেষ্টা করি। দেশে বিদেশ থেকে অনেকেই শুভেচ্ছা জানান। সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন।’ প্রয়াত বরেণ্য সুরকার-সঙ্গীত পরিচালক রবিন ঘোষের সঙ্গীত পরিচালনায় এহতেশাম পরিচালিত ‘নতুন সুর’ সিনেমাতে ১৯৬২ সালে শিশুশিল্পী হিসেবে প্রথম গান করেন। তবে ১৯৬৭ সালে আমজাদ হোসেন ও নূরুল হক বাচ্চু পরিচালিত ‘আগুন নিয়ে খেলা’ সিনেমাতে আলতাফ মাহমুদের সঙ্গীত পরিচালনায় ‘মধু জোছনা দীপালি’ গানটি গাওয়ার মধ্যদিয়ে প্লে-ব্যাক গায়িকা হিসেবে আত্নপ্রকাশ করেন।

বরেণ্য এই সঙ্গীত শিল্পী ১৯৮৪ সালে একুশে পদক, ১৯৯৬ সালে স্বাধীনতা পুরস্কার’সহ সর্বোচ্চ ১৩ বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন। ১৯৭৫ সালে প্রমোদকার (খান আতাউর রহমানের ছদ্ম নাম] পরিচালিত ‘সুজন সখী’ সিনেমাতে গান গাওয়ার জন্য প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন। এরপর বিভিন্ন সময়ে আমজাদ হোসেনের ‘গোলাপী এখন ট্রেনে’, ‘সুন্দরী’, ‘কসাই’, চাষী নজরুল ইসলামের ‘চন্দ্রনাথ’, মইনুল হোসেনের ‘প্রেমিক’, বুলবুল আহমেদ’র ‘রাজলক্ষী শ্রীকান্ত’ , আমজাদ হোসেনের ‘দুই জীবন’, কাজী হায়াৎ’র ‘দাঙ্গা’, মতিন রহমানের ‘রাধা কৃষ্ণ’, মোহাম্মদ হোসেন’র ‘আজ গায়ে হলুদ’ ও চাষী নজরুল ইসলামের ‘দেবদাস’ চলচ্চিত্রে প্লে-ব্যাক করার জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন। ১৯৭১ সালে নঈম গহরের লেখা ও আজাদ রহমানের সুরে সাবিনা ইয়াসমিনের গাওয়া ‘জন্ম আমার ধন্য হলো মাগো’ গানটি মুক্তিযোদ্ধাদের অসীম প্রেরণা জুগিয়েছিলো। গেলো ফেব্রুয়ারি মাসে সাবিনা ইয়াসমিনকে আরটিভি স্টার অ্যাওয়ার্ডে ‘আজীবন সম্মাননা’য় ভূষিত করা হয়। ১৯৮৪ সালে সাবিনা ইয়াসমিনকে একুশে পদকে ভূষিত করা হয়।
ছবি: গোলাম সাব্বির

Leave a Reply

এটাও পছন্দ করতে পারেন

সংবাদ পাঠে মুন্নীর দুই দশক, ১২ বার শ্রেষ্ঠত্বর পুরস্কারে ভূষিত

স্ত্রীর জন্মদিনে আমিন খানের সারপ্রাইজ

জন্মদিনেও শুটিং-এ সাজু খাদেম

‘তোর মনপাড়া’য় খ্যাত রাসেলের জন্মদিন আজ

শুভ জন্মদিন ইউসুফ আহমেদ খান

শুভ জন্মদিন জাহিদ হাসান

Copy link
Powered by Social Snap