সর্বশেষ আপডেট :নভেম্বর ১৫, ২০১৯
Ovinews24

তিন্নিই হয়ে উঠতে পারেন আগামীর প্রতিনিধি…

সেপ্টেম্বর ১, ২০১৯

অভি মঈনুদ্দীন : ২০১৭ সালের ‘সেরা কন্ঠ’র চূড়ান্ত শীর্ষস্থানীয় কয়েকজনের মধ্যে একজন হলেন কানিজ খাদিজা তিন্নি। প্রতিযাগিতার একটি বিশেষ পর্বে তিন্নি গেয়েছিলেন শিবলী সাদিক পরিচালিত ‘আনন্দ অশ্রু’ সিনেমার ‘তুমি আমার এমনই একজন’ গানটি। গানটি গাওয়ার সময় অতিথি বিচারক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গানটির গীতিকবি ও সঙ্গীত পরিচালক আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। তিন্নির কন্ঠে গান শুনে তিনি এতোটাই মুগ্ধ হয়েছিলেন যে ‘সেরা কন্ঠ ২০১৭’র চূড়ান্ত পর্বে যদি তিন্নি বাদ পড়ে যান তাহলে খুব অন্যায় হয়ে যাবে বলে মন্তব্য করেছিলেন আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল। কিন্তু তারপরও নিয়মের ধারাবাহিকতায় প্রথম দ্বিতীয় হতে পারেননি তিনি। কিন্তু থেমে যাননি তিন্নি। যারমধ্যে সঙ্গীতের এক দুর্নিবার সম্ভাবনা খুঁজে পেয়েছিলেন আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল সেই তিন্নি এখন স্টেজ শো নিয়েই বেশি ব্যস্ত থাকেন সঙ্গীতে নিজের যোগ্যতা দিয়েই। আগামী ৫ ও ১৭ সেপ্টেম্বর দুটো স্টেজ শোতে পারফর্ম করবেন তিনি। যদিও বা এখনো তিন্নির মৌলিক কোন গান প্রকাশিত হয়নি। কিন্তু তারপরও তিন্নি আশাবাদী হয়তো ভালো কিছু অপেক্ষা করছে সামনে। মাত্র চার বছর বয়সেই গুনগুনিয়ে গান গাইতে পারতেন তিন্নি। ছয় বছর বয়সে নারায়ণগঞ্জ জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে পাঁচ বছরের সঙ্গীতের কোর্সে ভর্তি হবার আগেই গানে তার হাতেখড়ি হয় শিল্পকলার শিক্ষক মায়া ঘোষের কাছে। তার গানের বড় অনুপ্রেরণা তার বাবা কাওসার ইমাম ও মা রুনা লায়লা। গানে তার আদর্শ শাহনাজ রহমতুল্লাহ, মিতালী মুখার্জি ও লতা মুঙ্গেশকর। ভালোলাগে রুনা লায়লা ও সামিনা চৌধুরীর গান। তিন্নি চার বছর ড. রেজওয়ান আলীর কাছে উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতে তালিম নিয়েছেন। পরবর্তীতে ২০১৭’তে সেরা কন্ঠ’তে প্রতিযোগিতায় নাম লেখান তিনি। সেরা কন্ঠের জার্নিটা তার নিজেকে পেশাগত সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে গড়ে তুলতে দারুণভাবে সহযোগিতা করেছে বলে তার ভাষ্য। কষ্ট নেই তিন্নির চূড়ান্ত পর্যায়ে কিছু না হতে পেরে। তিন্নি বলেন,‘ অনেক বিখ্যাত শিল্পী হবার বাসনা নেই। কিন্তু খুউব ভালো একজন মানুষ হতে চাই যাতে আমার বাবা মা গর্ব করতে পারেন। আর খুউব ভালো একজন শিল্পী হতে চাই, চাই শুদ্ধ সুরে সঠিকভাবে গান গাইতে।’

নারায়ণগঞ্জে নিজ বাড়ি সামনে হাস্যোজ্জ্বল তিন্নি

তিন্নির নিজস্ব ব্যাণ্ড দলের নাম ‘টি ক্রু। দলপ্রধান ও ভোকালে তিন্নি, কী-বোর্ডিস্ট হিসেবে আছেন তাফসির, লিড গীটারে মোর্শেদ, বেজ গীটারে সাজ্জাদ ও ড্রামার আশরাফুল। দলটির উপদেষ্টা নিজাম দেওয়ান। সেরা কন্ঠের বিভিন্ন পর্যায়ে তিন্নি গেয়েছেন ‘যে ছিলো দৃষ্টির সীমানায়’,‘ সুখ পাখিরে’, ‘তুমি বিনে আকুল পরাণ’, ‘যে প্রেম স্বর্গ থেকে এসে’, ‘তুমি আমার এমনই একজন’ ও ‘আরো কিছু দাওনা দু:খ আমায়’। একজন তিন্নির গায়কীই প্রমাণ করে সুযোগ পেলে তিনিই হয়তো হয়ে উঠতে পারেন আগামীর প্রতিনিধি। কারণ তিন্নি এর আগেও প্রমাণ করেছেন একজন সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে তিনি কতোটা যোগ্য। পিছনে ফিরলেই জানা যায় বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা ২০১৫’তে নজরুল সঙ্গীতে প্রথম পুরষ্কার স্বর্নপদক প্রাপ্তি তার। আবার জাতীয় শিশু প্রতিযোগিতা-২০১৬’তে নজরুল সঙ্গীতে দ্বিতীয় পুরষ্কার রৌপ্য পদকপ্রাপ্তি এবং জাতীয় দেশাত্মবোধক প্রতিযোগিতায় স্বর্ণ পদক প্রাপ্তি।
ছবি : আলিফ হোসেন রিফাত

Leave a Reply

এটাও পছন্দ করতে পারেন

পরপর দুটি রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি’তে গর্বিত মমতাজ

প্রকাশিত হলো তাদের ‘কোথাও কেউ নেই’

বশির আহমেদ’র ৮০’তম জন্মদিনে তাদের শ্রদ্ধাঞ্জলী

৩৫ বছর পর জাতীয় চলচ্চিত্র সম্মানায় উচ্ছসিত আঁখি

কাল প্রকাশ পাচ্ছে ইউসুফ-আনিকা’র ‘কোথাও কেউ নেই

দেশাত্ববোধক গানে সেরাকন্ঠের সেই তিন্নি

Copy link
Powered by Social Snap